আকর্ষণ বনাম সত্যিকারের ভালোবাসা - সন্দীপ মাহেশ্বরী

আপনি বাহির থেকে কোন না কোন বস্তুর বা ব্যক্তির প্রতি আকর্ষণ অনুভব করেন। আর সৌন্দর্য হচ্ছে এমন এক জিনিস যা আমাদের সেটার প্রতি আকর্ষণ বৃদ্ধি করে। অনেক সময় এই আকর্ষণে আপনি এত মুগ্ধ হয়ে যান যে, পৃথিবীকে ভুলে শুধু তাকেই দেখতে থাকেন।

আকর্ষণ বনাম সত্যিকারের ভালোবাসা - সন্দীপ মাহেশ্বরী
আকর্ষণ বনাম সত্যিকারের ভালোবাসা - সন্দীপ মাহেশ্বরী

এই অনুচ্ছেদটি প্রায় সম্পূর্ণ অংশ ভারতের জনপ্রিয় মোটিভেশনাল বক্তা সন্দীপ মাহেশ্বরী’র হিন্দি আলোচনা থেকে বাংলায় রুপান্তর করা হয়েছে। প্রেম শব্দের সাথে আমরা পরিচিত থাকলেও ব্যক্তি জীবনে বুঝতে অক্ষম থেকে যাই যে, কোনটা প্রেম? এবং কোনটা শুধুমাত্র আকর্ষণ? এই নিয়ে মাথায় চলে বেশ গ্যাঞ্জাম। তাই চলুন মূল আলোচনায় যাওয়া যাক।



সন্দীপ মাহেশ্বরী’র বক্তিতা বাংলায়

বাইরে হয়তো আপনি এমন কিছু দেখলেন যেটার জন্য আপনার মনে একটি শক্তিশালী ইচ্ছে বা উক্ত বস্তু বা ব্যক্তিকে পাওয়ার ইচ্ছে তৈরি হতে পারে। এখন, যখনই ঐ ব্যক্তি বা সুযোগ আমাদের সামনে আসে তখন আমাদের যেন কিছুই বলার থাকে না। অবশ্য সেটাও কিছু সময়ের জন্য। একসময় উক্ত ব্যক্তির আসল রুপ সামনে চলে আসে। তখন বুঝতে পারেন, আসলে যা ভেবেছিলাম তা প্রায় সম্পূর্ণ মিথ্যা হতে চলেছে। কিছু বুঝলেন? মনে হয় না। তাহলে একটা উদাহরণ দেওয়া যাক।


ধরুন, একজন অভিনেত্রীকে আপনার খুব ভালো লাগে। এখন যদি কখনো সেই ব্যক্তি হঠাৎ আপনার সামনে আসে তখন পড়ে যেতে পারেন মহা-মুশকিলে। কিছু সময় তো হা… করে চেয়ে দেখবেন তাকে, কিছুই বলতে পারবেন না। খেয়াল করুন, এটাও এক ধরণের ভালোবাসা বা প্রেম কিন্তু খুবই সাময়িক। এখানে কি সমস্যা আছে তাহলে?


আপনি বাহির থেকে কোন না কোন বস্তুর বা ব্যক্তির প্রতি আকর্ষণ অনুভব করেন। আর সৌন্দর্য হচ্ছে এমন এক জিনিস যা আমাদের সেটার প্রতি আকর্ষণ বৃদ্ধি করে। অনেক সময় এই আকর্ষণে আপনি এত মুগ্ধ হয়ে যান যে, পৃথিবীকে ভুলে শুধু তাকেই দেখতে থাকেন। মনে হয় পুরোপুরি আপনাকে উক্ত ব্যক্তি নিজের বশে নিয়ে নিয়েছেন। ঠিকাছে, এটাকে আপনি বলতে পারেন সাময়িক এক ধরণের ভালোবাসা বা প্রেম।


একজন ক্রিকেটার যখন হঠাৎ একটি চমৎকার ছক্কা মেরে দল কে জয়ী করে দেন তখন কেমন লাগে? নিশ্চয় বেশ অবাক ও একই সাথে মুগ্ধ হয়ে যান না? যেন মনে হয়, সেই সময়টা হঠাৎ থেমে গেছে। হয়তো, আপনি এই সব কথা সিনেমা বা সিরিজে বেশ শুনেছেন যে, প্রেমিক তার প্রেমিকাকে দেখার পর তার সময় যেন থমকে গেছে। তাই নয় কি?


ভালো হয় এটাকে প্রেম না বলে আকর্ষণ বলা। আপনি উক্ত ব্যক্তির প্রতি মুগ্ধ বা আকর্ষণ অনুভব করছেন কিন্তু এটা ভালোবাসা নয়। এই সমস্ত বিষয় খুবই সাময়িক। মানে হচ্ছে, আপনি কাউকে দেখলেন আর দেখা মাত্র-ই তার প্রতি ভালোলাগা তৈরি হয়ে গেল।


ভাবতে লাগলেন, পেয়ে গেছেন আপনার স্বপ্নের সেই প্রিন্স বা প্রিন্সেস। এখন ধরুন, পরেরদিন ঐ একই ব্যক্তিকে মেক-অ্যাপ ছাড়াই দেখলেন। তারপর আপনার ধারণা পুনরায় পাল্টে যেতে পারে। মনে হতে পারে, এটাই কি সেই ব্যক্তি যাকে আমি গতকাল দেখেছিলাম!


অর্থ্যাৎ আপনার মধ্যে একটি কাল্পনিক আদর্শ থাকে যে, এমন মেয়ে বা ছেলে হলে লাইফ পার্টনার বানানো যায়। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে, এই কল্পনা পরিবর্তন হতেই থাকে। একরকম থাকে না। তারপর ঐ ব্যক্তির বাস্তবতা এবং আপনার কাল্পনিক দুনিয়া যখন না মিলে তখন লড়াই-ঝগড়া হতেই থাকবে। এমনকি একসময় পৃথকও হয়ে যেতে পারেন। তাহলে প্রেম বা ভালোবাসা কি?


নিজেকে আবিষ্কার করুন

এর মানে হচ্ছে, আপনি নিজের সম্পর্কে আগে অবগত হোন। নিজের সম্পর্কে না জেনে ভালোবাসা বা প্রেম হতে পারে না। শুধুমাত্র ভালোবাসা হচ্ছে, এমনটি একটি ধাপ এর কোন প্বার্শ-প্রতিক্রিয়া নেই। বাকি এই পৃথিবীতে যত অনূভুতি আছে তার সবগুলোর পার্শ্ব-প্রতিক্রিয়া আছে। শুধুমাত্র প্রেম হলো এমন একটি বিষয় যা আপনাকে কাল্পনিক দুনিয়া থেকে মুক্তি দিয়ে বাস্তবে বাঁচতে শেখায়। আপনি একদম এই স্টেজে এসে নিমগ্ন হয়ে পড়েন।


প্রেম হলো এমন এক বিষয় যে, আপনি আর বেঁচে নেই; মরে গেছেন। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে হয় কি, আমরা আমাদের কাছের কারো প্রতি নির্ভরশীল হয়ে পড়ি। এবং তখন তার সঙ্গ ভালো লাগতে শুরু করে। একসময় আপনি অধিকার খাটাতেও শুরু করতে পারেন যে, “তুমি আমাকে ছেড়ে যেতে পারো না!”


এটা যদি প্রেম হয় তাহলে স্বার্থপরতা কি? যদি প্রেম থাকতো তাহলে আপনি নিশ্চয় বলতেন, “যা তোমার ইচ্ছে তুমি তা করতে পারো।” ছেড়ে দেবার থাকলে ছেড়ে দাও। সাথে থাকার ইচ্ছে হলে সাথে থাকো। যদি এই অনূভুতি আপনার মনে আসে তাহলে আপনি কখনো একা অনুভব করতেই পারবেন না। মনে হবে, আমরা দু’জন আলাদা সত্তা নই। একই সত্তা।


বছর কুড়ি পরেও যখন আপনি আপনার স্ত্রী কে দেখবেন তখনো মনে হবে, প্রথমবার আপনি তাকে দেখছেন। কারণ, আপনি আপনার স্ত্রী কে দেখছেন না। আপনি আপনাকে দেখছেন যেন! নিজেরই এমন একটি অবতার দেখছেন যা আপনার মূল অবতার থেকে একেবারে ভিন্ন।


আর এই মুগ্ধতা যেন শেষ হবার নয়। আপনি হয়তো ছোট কোন বাচ্চা কে দেখছেন তবুও আপনি মুগ্ধ হচ্ছেন। ওখানে কোন বিচার দাঁড় করাচ্ছেন না। শুধু দেখেই যাচ্ছেন। ওখানে কোন অতীত নেই, ভবিষ্যৎ নেই; আছে শুধু বর্তমান। তাই আপনি সেই সময়টা পুরোপুরি মুগ্ধতার মধ্যে কাটাচ্ছেন।


হতে পারে, সামনের মানুষটি ঠিক বুঝতে পারছেন না যে, এসব কি হচ্ছে? কারণ তিনি তো আপনার স্টেট অব মাইন্ড জানেন না। কিন্তু ওনারও ভালোই লাগবে। আর এটাই তো আমাদের সবার চাই। আমাদের সবারই একটু মনোযোগ পাবার আকাঙ্ক্ষা থাকে। সেটুকু তো দিতে পারছেন-ই এবং এতে আপনার কখনোই বিরুক্ত আসছে না।


যাইহোক, এই ছিলো বাংলায় অনুবাদকৃত “ATTRACTION AND REAL LOVE By Sandeep Maheshwari” এর বক্তিতা। ধন্যবাদ।


আরও পড়ুনঃ স্বল্পভাষী হওয়া জরুরী কেন? জানুন বিস্তারিত